সৌন্দর্য্য

উইকিউক্তি থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন

সৌন্দর্য হল একজন ব্যক্তি, স্থান, বস্তু বা ধারণার একটি বৈশিষ্ট্য যা আনন্দ, সুন্দর অর্থ বা সন্তুষ্টির উপলব্ধিমূলক অভিজ্ঞতা প্রদান করে। সৌন্দর্য অধ্যয়ন করা হয় নান্দনিকতা, সমাজবিজ্ঞান, সামাজিক মনোবিজ্ঞান এবং সংস্কৃতির অংশ হিসাবে। সৌন্দর্যের বিষয়গত অভিজ্ঞতা প্রায়শই প্রকৃতির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে কিছু সত্তার ব্যাখ্যা জড়িত থাকে, যা আকর্ষণ এবং মানসিক সুস্থতার অনুভূতির দিকে পরিচালিত করতে পারে।

উক্তি[সম্পাদনা]

“একটি বাগানের সৌন্দর্য দেখেই কি এটা বিশ্বাস করা যায় না যে, এটার নিচে পরী রয়েছে?”
― দ্য হিচিকার'স গাইড টু গ্যালাক্সি (১৯৭৯) : অধ্যায়, ১৬, ডগলাস অ্যাডামস
শ্রেণি: বাগান, পরী
“সবকিছুর সৌন্দর্য আছে তবে সবাই তা দেখে না।”
কনফুসিয়াস
শ্রেণি: কনফুসিয়াস
“যা স্থায়ী হয় তা অনুসরণ করুন। ভালো, সুন্দর এবং সত্যের জন্য বাঁচুন।”
থিওডোর বিলে
শ্রেণি: ভালো, সত্য
“এত স্বাভাবিক সৌন্দর্যের অধিকারী হওয়ার সাহস যে সেগুলি পরে দেখা গেলে লোকেরা বলে: কেন আমি আগে কখনও বুঝতে পারিনি যে এটিও সুন্দর?”
আন্দ্রে গাইড
শ্রেণি: সাহস
“নদনদীতেও সৌন্দর্য আছে, পুষ্পে নক্ষত্রেও সৌন্দর্য আছে, মনুষ্যে পশুপক্ষীতেও সৌন্দর্য আছে, এ কথা প্লেটো না পড়িয়াও আমরা জানিতাম—সেই সৌন্দর্য ভূতের মতো বাহির হইতে আসিয়া বস্তুবিশেষে আবির্ভূত হয় অথবা তাহা বস্তুর এবং আমাদের প্রকৃতির বিশেষ ধর্মবশত আমাদের মনের মধ্যে উদিত হয়, সে-সমস্ত তত্ত্বের সহিত সৌন্দর্যসম্ভোগের কিছুমাত্র যোগ নাই।”
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
শ্রেণি: ভূত, প্লেটো


আরও দেখুন[সম্পাদনা]