বিষয়বস্তুতে চলুন

অরুন্ধতী রায়

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে
অরুন্ধতী রায়

সুজানা অরুন্ধতী রায় (জন্ম ২৪ নভেম্বর ১৯৫৯) একজন ভারতীয় ঔপন্যাসিক এবং রাজনৈতিক সক্রিয়তাবাদী। তিনি তার উপন্যাস দ্য গড অব স্মল থিংসের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত। ১৯৯৭ সালে প্রকাশিত এই উপন্যাসটির জন্য ১৯৯৭ সালের ম্যান বুকার পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়াও তিনি পরিবেশগত সংশ্লিষ্টতা এবং মানবাধিকার সংক্রান্ত বিষয়েও জড়িত রয়েছেন।

উক্তি[সম্পাদনা]

  • স্বাধীনতা নিজেই আমাদের কাছে এসেছে গান্ধী যাকে "'কাঠের রুটি'" বলে অভিহিত করেছেন। দেশভাগের সময় প্রাণ হারানো হাজার হাজার মানুষের রক্তে কলঙ্কিত হয়েছে একটি অনুমিত স্বাধীনতা।
    • ওয়ার টক(War Talk) (২০০৩), পৃষ্ঠা নং-৩৯
  • লেখক অনুধাবনের ধাত্রী।
  • মার্কিন সাম্রাজ্য দাঁড়িয়ে আছে এক ভয়ানক ভিত্তির উপর: লক্ষ লক্ষ আদিবাসীদের গণহত্যা, তাদের ভূমি চুরি এবং সেই ভূমিতেই কাজ করার জন্য আফ্রিকা থেকে লক্ষ লক্ষ কালো মানুষকে অপহরণ করে তাদের দাসে পরিণত করা হয়েছে। লক্ষ লক্ষ মানুষ সাগরেই মারা গিয়েছে যখন তাদের পশুর মত খাঁচায় বন্দি করে পাচার করা হয়। “স্টোলেন ফ্রম আফ্রিকা, ব্রট টু আমেরিকা”- বব মার্লের ‘বাফেলো সোলজার’-এ রয়েছে অবর্ণনীয় বেদনার এক নিখিল মহাবিশ্ব।
    • ওয়ার টক(War Talk) (২০০৩), পৃষ্ঠা নং-৮৫
  • আমরা কি করতে পারি? আমরা আমাদের স্মৃতিকে জাগ্রত করতে পারি, আমরা আমাদের ইতিহাস থেকে শিখতে পারি। আমরা একটি দুর্বার প্রতিবাদ সৃষ্টি তোলা অবধি জনমত গড়ে তুলতে পারি। আমরা ইরাকের বিরুদ্ধে যুদ্ধকে মার্কিন সরকারের বাড়াবাড়ির ফিশবোলে পরিণত করতে পারি। আমরা জর্জ বুশ এবং টনি ব্লেয়ার এবং তাদের মিত্রদের কাপুরুষের মত শিশু হত্যা, জলে বিষ প্রয়োগ এবং দূরপাল্লার বোমারু বিমান নিক্ষেপের কথা উন্মোচন করতে পারি।
    • ওয়ার টক(War Talk) (২০০৩), পৃষ্ঠা নং-১১১
  • বাকস্বাধীনতা আইনগত ও সাংবিধানিকভাবে অবাধ হলেও তা প্রয়োগের জায়গাটি আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে এবং সর্বোচ্চ দাতাদের নিকট নিলামে তোলা হয়েছে।
    • অ্যান অরডিনারি পারসোন’স গাইড টু এমপায়ার(২০০৫) পৃষ্ঠা-৪৮
  • তাদের(পশ্চিমাদের) আইডিয়া, তাদের ইতিহাসের সংস্করণ, তাদের যুদ্ধ, তাদের অস্ত্র, তাদের অনিবার্যতার ধারণা- যা তারা বিক্রি করছি তা যদি আমরা কিনতে অস্বীকার করি, তাহলে কর্পোরেট বিপ্লব ভেঙ্গে পড়বে।
    • অ্যান অরডিনারি পারসোন’স গাইড টু এমপায়ার(২০০৫) পৃষ্ঠা-৮৬
  • নতুন পৃথিবী শুধু সম্ভবই নয়, সে তার পথে। নিস্তব্ধ দিনে, আমি তার নিঃশ্বাসের শব্দ শুনতে পায়।
    • অ্যান অরডিনারি পারসোন’স গাইড টু এমপায়ার(২০০৫) পৃষ্ঠা-৪৪
  • ওসামা বিন লাদেন এবং জর্জ বুশ উভয়ই সন্ত্রাসী ছিলেন। তারা উভয়ই আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক তৈরি করেছিলেন যা সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেয় এবং মানুষের জীবনকে ধ্বংস করে। পেন্টাগন, ডব্লিউটিও, আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে বুশ এবং আল-কায়েদার সঙ্গে বিন লাদেন। পার্থক্য হলো, কেউই বিন লাদেনকে ভোট দেননি।
    • দ্য শেপ অব দ্য বিস্ট: কনভারসেশনস উইথ অরুন্ধতী রায়(২০০৮) পৃষ্ঠা- ৯১
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সাদ্দাম হোসেনকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে সমর্থন করেছিল এবং নিশ্চিত করেছিল যে তিনি যেন শক্ত-হাতে শাসন চালিয়ে যেতে পারে। এরপর তারা নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে ভেঙে দেয় ইরাকের নাগরিক সমাজের মেরুদণ্ড, ইরাককে করে দেয় নিরস্ত্র এবং চালায় বর্বর আক্রমণ করে। আর এখন তারা এর সব সম্পদ দখল করে নিয়েছে।
    • দ্য শেপ অব দ্য বিস্ট: কনভারসেশনস উইথ অরুন্ধতী রায়(২০০৮) পৃষ্ঠা-১২৬-১২৭
  • আপনি যদি ধার্মিক হন, তাহলে মনে রাখবেন বোমা স্রষ্টার প্রতি মানুষের একটি চ্যালেঞ্জ। এর দ্বারা খুব সহজভাবে বলা হয়েছে: আপনি যা কিছু সৃষ্টি করেছেন তা ধ্বংস করার ক্ষমতা আমাদের রয়েছে। আপনি যদি ধার্মিক না হন, তাহলে বিষয়টিকে এভাবে দেখুন। আমাদের এই পৃথিবীর বয়স ৪,৬০০,০০০ বছর। বিকেলের মধ্যেই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে।
    • দ্য এন্ড অফ ইমাজিনেশন, পার্ট-১, পৃষ্ঠা-৬৪
  • বিংশ শতাব্দীর অধিকাংশ গণহত্যার কারণ ছিল কোনো না কোনো ধরনের জাতীয়তাবাদ।
    • বক্তৃতা সান্তা ফে, নিউ মেক্সিকো(২৯ সেপ্টেম্বর ২০০২), শিরোনাম:কাম সেপ্টেম্বর
  • পতাকা হচ্ছে সেই রঙিন কাপড়ের টুকরো যা সরকার প্রথমে মানুষের মস্তিষ্ক সংকুচিত করতে এবং পরবর্তীতে মৃতদের কবর দেওয়ার জন্য আনুষ্ঠানিক কাফন হিসেবে ব্যবহার করে।
    • বক্তৃতা সান্তা ফে, নিউ মেক্সিকো(২৯ সেপ্টেম্বর ২০০২), শিরোনাম:কাম সেপ্টেম্বর

অরুন্ধতী রায় সম্পর্কে উক্তি[সম্পাদনা]

  • অরুন্ধতী রায় তার প্রতিভা এবং তার নির্ভীকতায় দ্যুতিময়।
  • রায় কোনও বিধিনিষেধ ছাড়াই তার উদ্দীপ্ত মন্তব্যের সাথে একটি দীপ্তিমিান প্রতিবেদনের সংমিশ্রণ ঘটিয়েছে। আমি তাঁর সাহস এবং দক্ষতা উভয়কেই স্যালুট জানাই।
  • আমি আমার বক্তৃতায় বরাবরই সহিংসতার সমালোচনা করেছি, কিন্তু মাত্র দুই শতাংশ এলাকায় যেভাবে ঝামেলা উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে এবং আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়েছে তা মোকাবেলা করা উচিত। অরুন্ধতী রায় গুজরাটিদের ধর্ষক হিসাবে চিত্রিত করবে এবং তারপরে ক্ষমা চেয়ে নির্দোষ হবে। এটা কি গুজরাটের অপমান নয়?

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]