বিষয়বস্তুতে চলুন

বিষ্ণু দে

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে

বিষ্ণু দে (১৮ জুলাই ১৯০৯ - ৩ ডিসেম্বর ১৯৮২) ছিলেন একজন বাঙালি কবি লেখক এবং চলচ্চিত্র সমালোচক।

উক্তি[সম্পাদনা]

  • দায়িত্বপূর্ণ লেখনী অসার আত্মপ্রকাশের গরজে অস্থির নয় বলেই তাঁর লেখা অল্পবিস্তর অসরল
  • চোরাবালি ডাকি দূর দিগন্তে
    কোথায় পুরুষকার ?
    হে প্রিয় আমার, প্রিয়তম মাের!
    আয়ােজন কাপে কামনার ঘোর
    অঙ্গে আমার দেবে না অঙ্গীকার?'
    • "ঘােড়সওয়ার", চোরাবালি
  • আমরা ভেনেছি ধান, আমরা ভেঙেছি গম
    জোয়ার বজরা আর শষ্য অড়হর
    আমরা তুলেছি পাট আমরা বুনেছি শাড়ি গড়েছি পাথর।
    • "ঘােড়সওয়ার", চোরাবালি
  • আমরা জনতা, জনসাধারণ, সাধারণ লােক,
    চাষী ও মজুর, কবি শিল্পী শ্রষ্টা
    রাত্রি আজ করে দিই দিন।
   

পৃথিবীর জনতার গ্লান
      স্পর্শ তো করেনি আমাদের

"পলায়ন", উর্বশী ও আর্টেমিস (১৯৩২), পৃ ২০
   

মানুষের অরণ্যের মাঝে আমি বিদেশী পথিক
মুখোমুখি কথা বলি – চোখে লাগে অটল প্রাচীর‌।
বিদেশী পথিক আমি এসেছি কি বিধাতার ভুলে
পৃথিবীর সভাগৃহে, বুঝি নাকো ভাষা যে এদের।

"উর্বশী", উর্বশী ও আর্টেমিস (১৯৩২), পৃ ৪২
  • চাচা-র আপন প্রাণ বাঁচানোর ক্ষেত্রে
    শিং ভেঙে মেশে স্বার্থে শত্রু মিত্র।
    • "পূর্বলেখ", পৃ ১৩২, কবিতা সমগ্র-১, বিষ্ণু দে
  • নেকড়ের হন্যেয় দেশ ছিন্নভিন্ন, সন্দেহ ও ভয়
    কলুষ ছড়ায় দুই হাতে, গায় শৃগালে বাহবা।
    তবুও আকাশ ছায় আমাদের মুক্তি উচ্চৈঃশ্রবা
    মানুষ দুর্জয়।
    • "নাম রেখেছি কোমল গান্ধার", পৃ ১৩, কবিতা সমগ্র দুই, বিষ্ণু দে

বিষ্ণু দে সম্পর্কে[সম্পাদনা]

  • ছন্দোবিচারে ‘তাঁর অবদান অলোকসামান্য' এবং কাব্যরসিকের ‘নিরপেক্ষ সাধুবাদই বিষ্ণু দে-র অবশ্যলভ্য।
    • সুধীন্দ্রনাথ দত্তের মন্তব্য

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]