বিষয়বস্তুতে চলুন

ভিলহেল্ম কনরাড র‌ন্টগেন

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে
I did not think; I investigated.

ভিলহেল্ম কনরাড রন্টগেন (জার্মান: Wilhelm Conrad Röntgen ভিল্‌হেল্ম্‌ কন্‌রাট্‌ র‌্যন্ট্‌গ্‌ন্‌) (মার্চ ২৭, ১৮৪৫ – ফেব্রুয়ারি ১০, ১৯২৩) একজন জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী যিনি পদার্থবিজ্ঞানে প্রথম নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। তিনি এক্স রশ্মির আবিষ্কারক যাকে তার নামানুসারে রঞ্জন রশ্মিও বলা হয়।

উক্তি[সম্পাদনা]

প্রথমে মনে হচ্ছিল এটি নতুন এক ধরনের অদৃশ্য আলো। এটি ছিল একদম নতুন কিছু, এমন কিছু যার পূর্ববর্তী কোনো রেকর্ড নেই।

দ্যা নিউ মার্বেল ইন ফটোগ্রাফি (১৮৯৬)[সম্পাদনা]

নতুন ধরনের রশ্মির অস্তিত্ব আবিস্কারের পর, আমি এটি কি কাজ করে তা অনুসন্ধান শুরু করি।
"দ্যা নিউ মার্বেল ইন ফটোগ্রাফি", লেখক: এইচ জে ড্যাম, ম্যাগাজিন McClure's , সংখ্যা ৬, নং ৫ (এপ্রিল ১৮৯৬), পৃষ্ঠা ৪১৬, প্রকল্প প্রজেক্ট গুটেনবার্গ থেকে রন্টগেন এর উক্তিসমূহ।
আমাদের সেটা দেখা উচিত যেটা আমাদের দেখা উচিত. আমাদের এখন থেকে শুরু করতে হবে; পরিবর্তনসমূহ সময়ের সাথে হতে থাকবে।
  • আমি একটি ক্রুকস টিউব নিয়ে কাজ করছিলাম যা কালো কার্ডবোর্ড এর ঢাল দ্বারা ঢাকা ছিল। সেখানের বেঞ্চে একটি বেরিয়াম প্লাটিনোসায়ানাইড এর টুকরা রাখা ছিল। আমি টিউবটির মধ্য দিয়ে কারেন্ট চালনা করছিলাম, এবং আমি কাগজটির মধ্যে একটি অদ্ভুদ রেখা লক্ষ্য করলাম। … প্রভাবটি ছিল এমন যা শুধু উৎপাদিত হতে পারে, সাধারণত, আলোর ধারণা থেকে কোনো ধরনের আলো টিউব থেকে বের হওয়ার কথা না, কারন কালো কার্ডবোর্ড এর ঢাল যেটি দারা টিউবটি ঢাকা ছিল তা এতটাই দুর্ভেদ্য যে সকল ধরনের আলো শোষন করতে পারে, এমনকি বৈদ্যুতিক আর্ক ও এই ঢাল হতে বের হতে পারবেনা। … আমি মনে করিনা; আমি অনুসন্ধান করেছি। আমি ধরে নিয়েছিলাম প্রভাবটি টিউব থেকে এসেছিল , যেহেতু এটির বৈশিষ্ট্য নির্দেশ করে যে এটি আর কোথাও থেকে আসতে পারেনা। আমি এটিকে টেস্ট করেছি। কয়েক মিনিটের মধ্যে আর কোনো সন্দেহ রইলনা কাগজের ওপর আলোকিত প্রভাবের কারন যে রশ্মিগুলো টিউব থেকে আসতেছিল সেগুলো। আমি এটিকে সফলভাবে দুই মিটারের মত ভালো হতে ভালোতম দূরত্ব হতে চেষ্টা করেছি। প্রথমে মনে হচ্ছিল এটি নতুন এক ধরনের অদৃশ্য আলো। এটি ছিল একদম নতুন কিছু, এমন কিছু যার পূর্ববর্তী কোনো রেকর্ড নেই।
  • নতুন ধরনের রশ্মির অস্তিত্ব আবিস্কারের পর, আমি এটি কি কাজ করে তা অনুসন্ধান শুরু করি। … তারা শীঘ্রই পরীক্ষা থেকে প্রকাশ পায় যে, রশ্মির প্রবেশশক্তি পূর্বে অজানা পর্যায়ের ছিল। তারা কাগজে, কাঠে ও কাপড়ে সহজেই অনুপ্রবেশ করতে পারে; এটির বেধ এতটাই কম যে তা যুক্তিসঙ্গত সীমার মধ্যে উপলদ্ধি করা যায়না. … রশ্মিগুলি পরীক্ষা করা সব ধাতুর মধ্য দিয়ে পার হয়েছিল, যা প্রায়ই ধাতুর ঘনত্বের সাথে পরিবর্তনশীল ছিল। এই ঘটনাগুলি আমি Würzburg সোসাইটিতে আমার প্রতিবেদনে সাবধানতার সাথে আলোচনা করেছি এবং আপনি সেখানে বর্ণিত সমস্ত প্রযুক্তিগত ফলাফল দেখতে পাবেন।
  • আমি একজন প্রফেট নই, এবং প্রফেসিকে বিরোধ করি। আমি আমার গবেষণাগুলি অনুসন্ধান করছি, এবং যত দ্রুত আমার ফলাফলগুলি যাচাই করা হবে, তত দ্রুত আমি তাদের প্রকাশ করব।
  • আমাদের সেটা দেখা উচিত যেটা আমাদের দেখা উচিত। আমাদের এখন থেকে শুরু করতে হবে; পরিবর্তনসমূহ সময়ের সাথে হতে থাকবে।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]