বিষয়বস্তুতে চলুন

মুহম্মদ জাফর ইকবাল

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে

মুহম্মদ জাফর ইকবাল (জন্ম: ২৩ ডিসেম্বর ১৯৫২) হলেন একজন বাংলাদেশী কথাসাহিত্যিক ও বিজ্ঞান কল্পকাহিনী লেখক, কলাম লেখক, পদার্থবিদ, শিক্ষাবিদ ও আন্দোলনকর্মী। তিনি ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। ক্যলিফোর্নিয়া ইন্সটিটিউট অব টেকনলজি ও বেল কমিউনিকেশনস রিসার্চে ১৮ বছর কাজ করার পর তিনি বাংলাদেশে ফিরে আসেন ও ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বরে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে অধ্যাপক হিসেবে যোগদান করেন এবং ২০১৮ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত একই বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ কৌশল বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। ২০১৮ সালে ৩ অক্টোবর তিনি অবসরে যান। তিনি বিভিন্ন গল্প, উপন্যাস, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী লিখেছন। তার লেখা কিছু উপন্যাস চলচ্চিত্রে রূপায়িত হয়েছে। তাকে বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ স্থানীয় বিজ্ঞান কল্পকাহিনী লেখক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

উক্তি[সম্পাদনা]

  • একজন বিখ্যাত মানুষ দিয়ে কি হয়?, কিছুই হয় না ।কিন্তু একশটা খাঁটি মানুষ দিয়ে একটা দেশ পাল্টে দেয়া যায় ।তাই চেষ্টা করতে হয় খাঁটি মানুষ হওয়ার।
    • "দুষ্টু ছেলের দল" - মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১]
  • সরকার যদি লেখাপড়ার গুরুত্বটা বুঝে সেনাবাহিনীর বাজেট না বাড়িয়ে শিক্ষার বাজেট বাড়াত, তাহলে এই দেশে কী বিপ্লব ঘটে যেতে পারত কেউ কি কখনও কল্পনা করে দেখেছে?
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [২]
  • নিজের জন্যে যখন কিছু একটা করি তখন অবশ্যই আমাদের এক ধরনের আনন্দ হয়। কিন্তু তার থেকে শতগুণ বেশি আনন্দ হয় যখন আমরা অন্যের জন্যে কিছু করি!
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৩]
  • যে মানুষগুলোকে আগে কখনও দেখিনি তাদের থেকে বিদায় নেবার সময় সবার চোখে পানি– এ রকম বিচিত্র ঘটনা বাঙালি ছাড়া অন্য কোনো মানুষের জীবনে ঘটেছে কি না আমার জানা নেই। মাঝে মাঝেই মনে হয়, ভাগ্যিস বাঙালি হয়ে জন্মেছিলাম, তা না হলে কত কিছু যে অজানা থেকে যেত!
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৪]
  • যদি আমরা একজন মানুষকে ভিন্ন ধর্মাবলম্বী হওয়ার জন্য এই দেশে তাকে নিরাপত্তা দিতে না পারি তাহলে এই দেশটি কাদের জন্য?
    • "সাদাসিধে কথা"- মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৫]
  • কে আমাকে নিয়ে কি ভাবল তাতে আমার কিছু যায় আসেনা , কারন যে আমাকে চেনে সে তো জানেই আমি কেমন , আর যে আমাকে চেনেনা , সে আমাকে নিয়ে কি ভাবল তাতে কি!
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৬]
  • কিছু ত্যাগ না করে কখনো কিছু পাওয়ার স্বপ্ন দেখবেন না। অপেক্ষাকৃত ভাল কিছু পাওয়ার জন্য ভালো কিছুকে ত্যাগ করতে শিখুন।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৭]
  • সুন্দর মানুষ সব সময় ভালো হয়না। কিন্তু ভালো মানুষ সব সময়ই সুন্দর হয়।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৮]
  • এ-বদ্বীপে দালালি ছাড়া- ফুলও ফোটে না, মেঘও নামে না।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৯]
  • প্রতিটা বাগানে লেখা থাকে, “ফুল ছেড়া নিষেধ” যদি ভালোবাসার মাঝেও লেখা থাকতো যে, “কারো মন ভাঙ্গা নিষেধ ” তাহলে পৃথিবীটা সত্যিই সুন্দর হতো।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১০]
  • “ভালো থেকো “- বলে চলে যাওয়ার সময় মানুষটি একটা বারও চিন্তা করে না অপর পাশের মানুষটির ভালো থাকার কারণই সে নিজে।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১১]
  • মানুষের ভেতর ইতিবাচক আর নেতিবাচক দুই অনুভূতিই আছে। যে মানুষ তার নেতিবাচক অনুভূতি নিয়ন্ত্রণ করে ইতিবাচক অনুভূতিটি দেখাতে পারে, আমরা তাদের ভালো মানুষ বলি।
    • "ত্রাতিনা" - মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১২]
  • বাকস্বাধীনতা চমৎকার বিষয়। কিন্তু একটা মিথ্যা তথ্য যদি একটা বিশেষ উদ্দেশ্যে প্রচার করা হয়, তখন সেই তথ্য প্রচার করার অধিকার বাকস্বাধীনতা নয়। তখন সেই অধিকার হচ্ছে মিথ্যা কথা বলার অধিকার।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৩]
  • আমেরিকার সাধারণ মানুষেরা গোমড়ামুখী নয়, তারা খুব হাসিখুশি। পথেঘাটে সুন্দরী মেয়েরা খামোখা মিষ্টি হাসি দিলেই তারা প্রেমে পড়ে গেছে ভাবার কোনো কারণ নেই।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৪]
  • টেলিস্কোপ দিয়ে গভীর মহাকাশের দিকে তাকালে একটা বিচিত্র অনুভূতি হয়- হঠাৎ নূতন করে মনে পড়ে যায় এই বিশ্বব্রহ্মাণ্ড কত বড়, আমরা এই ছোট গ্রহটার মানুষরা কত ছোট। অথচ সেই ছোট ছোট মানুষরা তুচ্ছ বিষয় নিয়ে মাঝে মাঝে কী সাংঘাতিক মাথা- গরম করে ফেলি!
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৫]
  • পৃথিবীর সব মানুষ এক- তাদের গায়ের রঙ আর মুখের ভাষা দেখে যেন ভুল বুঝো না।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৬]
  • যারা মদ খেতে চায় না আমেরিকানরা কখনওই তাদেরকে সেটা খেতে জোরাজুরি করবে না। তবে মদ-খাওয়া বাঙালিদের কথা আলাদা। তারা নিজেরা সেটা খায় বলে অন্যদের খাওয়ানোর জন্যে বাড়াবাড়িতে ব্যস্ত থাকে। বাঙালিদের আসরে তারা অন্য বাঙালিদের জোর করে, তাদের চাপ দেয় এবং না খেলে তাকে নিয়ে টিটকারি-ঠাট্টা-তামাশা করে।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৭]
  • প্রবাশে দীর্ঘদিন থেকে লেখাপড়া শেষ করে জীবনকে উপভোগ করে কখনও যদি দেশের জন্যে বুক টনটন করে তখন কী করতে হবে?
    তখন তারা আবার এই দেশটাতে ফিরে আসতে পারবে। মা যেমন করে তার সন্তানের জন্যে অপেক্ষা করে, দেশমাতৃকাও ঠিক সে রকম করে তার সন্তানের জন্যে গভীর ভালোবাসা নিয়ে অপেক্ষা করে থাকে, অপেক্ষা করে আছে।
    আমি বাড়িয়ে বলছি না– আমি এটা জানি।
    • মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [১৮]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]