বিষয়বস্তুতে চলুন

অতুলকৃষ্ণ মিত্র

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে

অতুলকৃষ্ণ মিত্র একজন কলকাতার শ্রেষ্ঠ লেখক, সম্পাদক এবং নাট্যকার ছিলেন। অবিভক্ত ভারতের কলকাতায় ২২ নভেম্বর ১৮৫৭ সালে অতুলকৃষ্ণ মিত্র জন্মগ্রহণ করেন। সিপাহী বিদ্রোহের সময় অতুলকৃষ্ণ এর পরিবার কলকাতা ছেড়ে কোন্নগরে বসবাস শুরু করেন। অতুলকৃষ্ণ গ্রামেরই বঙ্গবিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন । কলকাতা এবং মামার বাড়ির কাছে ইংরেজি-সাহিত্য, ইতিহাস প্রভৃতি বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ করেন ।

উক্তি[সম্পাদনা]

  • কিসে সুযোগ? কিসে সুযোগ? কিসে সুযোগ?/যদি চালাকি-চাতুরি না হয় যোগ?
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ১১ থেকে গৃহীত। রংরাজ
  • যোগেযাগে ঠিক হবে যোগাযোগ।
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ১১ থেকে গৃহীত। রংরাজ
  • যদি তারা পাকা কেউ হয়,/চোরের- বাটপাড়ও তো রয়;
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ১১ থেকে গৃহীত। রংরাজ
  • তোর টাকাও আমার টাকা-আমার টাকাও তোর টাকা-টাকায় টাকায় মিশিয়ে দিয়ে-গট হয়ে বসে সুদ খাবো।
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ১১ থেকে গৃহীত। রংরাজ
  • যে যার সে তার ভাগ বসাবো, আপন সিন্দুকে খিল আঁটবো।
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ১১ থেকে গৃহীত। রংরাজ
  • মত্ত মত্ত মহা মত্ত গঞ্জিকা চরসোগুলি,/সৌন্ডীকস্য জলে মত্ত শেষাশ্রয়ো নয়াঞ্জুলি।
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ২৩ থেকে গৃহীত।রংরাজ
  • কাম ক্রোধ লোভ মোহঃ মদমত্ত যে বা নরঃ।/বসুন্ধরা ভার দুষ্ট নষ্ট সে বানর।
    • রংরাজ রঙ্গনাট্য, পৃষ্ঠা ২৩ থেকে গৃহীত।রংরাজ
  • জলেতে হয়না শীতল মনের অনল ভিতরে জ্বলে।/জ্বলনী যতউ বাড়ে ডুব দি বত্ শীতল জ্বলে।।
  • আমি-স্বরগের প্রেম অমৃত পিয়িব গো।/পিয়ে- আরামে রহিব, অমরি হইব, /অমরে আমন করিয়ে লইব গো।। /রূপ যৌবনের নাহি সেথা ভয়,/গুণ গরিমার চিরদিনই; /চির শান্তিময় সুখের নিলয়।/স্বরগে সোহাগে রইতে পারিব গো।।
  • দেবতা ভিতরে সৌন্দর্যের ভিখারি।
  • তুমিও তো মানুষ! তুমি দেবতা পাবার আশা কচ্ছ কিসে?
  • ভিতর বার সমান ছাঁচে ঢালা, সরল-সুন্দর ভাবে গড়া, এমন যদি কেউ থাকে, তাহলে হয়তো তাকে ভালোবাসতে দেবতা এলেও আসতে পারেন।
  • যে ভালোবাসায় আগাগোড়া সবই সমান তাই আসল। তাতে সন্দেহ নাই, কান্না নাই, দীর্ঘশ্বাস নাই; আছে কেবল সন্তোষ, শান্তি আর নিড়বচ্ছিন্ন আনন্দ।
  • ভালোবাসা নাইক দুনিয়ায়। /হেথা- প্রেম বিরহের জোয়ার ভাটায় দিন রাত জ্বলায়।।
  • বাদশা কে ? যে মহাপুরুষ নিজের রাজ্যে নিজেকে দীনের দীন অতিদীন বিবেচনায়, কি দরিদ্র কি ধনবান সকলকে সমচক্ষে দেখে, তাদের সেবার জন্য দেহপাত কৰতে জানে, যে মহাতপা বাদ সাব বাদশা কর্তৃক নিজেকে নিয়োজিত বুঝে নিজের স্ত্রী পুত্রবৎ সকলকে সমভাবে পালন করতে প্রবৃত্ত হয়, যে মনস্বী পুরুষ নিজের নিজত্ব বিস্মত হয়ে পরের পরত্বে আপনাকে সমর্পণ কঅরে, প্রজাপুঞ্জের প্রকৃতিতে লীন হয়ে থাকে, বাদশা সেই।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]