বিষয়বস্তুতে চলুন

সংসার

উইকিউক্তি, মুক্ত উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন থেকে

সংসার হলো সমস্ত ভারতীয় ধর্মে একটি মৌলিক ধারণা, কর্ম তত্ত্বের সাথে যুক্ত এবং এই বিশ্বাসকে বোঝায় যে সমস্ত প্রাণী চক্রাকারে জন্ম ও পুনর্জন্মের মধ্য দিয়ে যায়। ‘সংসার’ একটি বহুল পরিচিত শব্দ তবে এর অর্থ ব্যাপক। শব্দটি বিভিন্ন শব্দযোগে ও ব্যবহৃত হয়। যেমন জগৎ সংসার জীবন সংসার, ঘর সংসার ইত্যাদি। মানুষ সামাজিক জীব আর সমাজের সাথে মানুষকে সংযুক্ত করতে সংসার একটা বড় ভূমিকা পালন করে।

উক্তি[সম্পাদনা]

  • এ সংসারে বিশেষ দুঃখ এই যে, মরিবার উপযুক্ত সময়ে কেহ মরে না। অসময়ে সবাই মরে।
    • বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, কৃষ্ণকান্তের উইল - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশক- বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ প্রকাশনা সংস্থা, প্রকাশসাল- ১৯৪৪ খ্রিস্টাব্দ (১৩৫১ বঙ্গাব্দ), দ্বিতীয় খণ্ড, একাদশ পরিচ্ছেদ, পৃষ্ঠা ৯৯
  • সংসার যবে মন কেড়ে লয়
    জাগে না যখন প্রাণ
    তখনো হে নাথ প্রণমি তােমায়
    গাহি বসে তব গান।
    • রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নৈবেদ্য-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, প্রকাশক- বিশ্বভারতী গ্রন্থন বিভাগ, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৯৫১ খ্রিস্টাব্দ (১৩৫৮ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৬
  • করো না মানবগণ বৃথা ক্ষয় এ জীবন
    সংসার-সমরাঙ্গন মাঝে;
    সংকল্প করেছ যাহা, সাধন করহ তাহা
    রত হয়ে নিজ নিজ কাজে।
    • হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, জীবন সঙ্গীত কবিতা, কবিতাবলী- হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, দ্বিতীয় সংস্করণ, প্রকাশক- এডুকেশন গেজেট ও অবোধবন্ধু, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৭১ খ্রিস্টাব্দ (১২৭৮ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৬-১৭
  • যে ব্যক্তি আশাকে দাসী করিয়া সকল ক্লেশের মস্তকে পদার্পণ করিয়াছে তাহারই জীবন সার্থক এবং যদি সংসারে কেহ সুখী থাকে তবে সে ব্যক্তিই যথার্থ সুখী।
    • ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, অষ্টম উপাখ্যান, বেতালপঞ্চবিংশতি - ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, নবম সংস্করণ, প্রকাশক- সংস্কৃত প্রেস ডিপোজিটরি, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৬৮ খ্রিস্টাব্দ (১২৭৫ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১০৪-১০৫
  • নক্ষত্রদের জন্মের কথা এখনো বলা হয় নাই। জন্ম ও মৃত্যু বড় মজার ব্যাপার; ইহারা ঠিক্ তালে তালে পা ফেলিয়া পাশাপাশি না চলিলে সংসার টিকিয়া থাকে না।
    • জগদানন্দ রায়, নক্ষত্রদের জন্ম, গ্রহ-নক্ষত্র- জগদানন্দ রায়, প্রকাশক- ইণ্ডিয়ান প্রেস লিমিটেড, প্রকাশস্থান- এলাহাবাদ (প্রয়াগরাজ), প্রকাশসাল- ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দ (১৩২২ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ২১৫
  • বলো না কাতর স্বরে বৃথা জন্ম এ সংসারে
    এ জীবন নিশার স্বপন;
    দারাপুত্র পরিবার তুমি কার কে তোমার
    বলে জীব করো না ক্রন্দন।
    • হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, জীবন সঙ্গীত কবিতা, কবিতাবলী- হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, দ্বিতীয় সংস্করণ, প্রকাশক- এডুকেশন গেজেট ও অবোধবন্ধু, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৭১ খ্রিস্টাব্দ (১২৭৮ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৫
  • সব লোকে কয়, লালন কি জাত সংসারে।
    লালন বলে, জাতির কি রূপ, দেখলাম না এই নজরে॥
    কেউ মালা কেউ তসবীর গলে
    তাইত রে জাত ভিন্ন বলে
    যাওয়া কিম্বা আসার বেলায়
    জাতের চিহ্ন রয় কারে॥
    • লালন, লালন-গীতিকা- লালন, সম্পাদক- মতিলাল দাশ ও পীযূষকান্তি মহাপাত্র, প্রকাশক- কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রকাশনা সংস্থা, কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৯৫৮ খ্রিস্টাব্দ (১৩৬৫ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ৩৮
  • তুমি বসন্তের কোকিল, বেশ লোক। যখন ফুল ফুটে, দক্ষিণ বাতাস বহে, এ সংসার সুখের স্পর্শে শিহরিয়া উঠে, তখন তুমি আসিয়া রসিকতা আরম্ভ কর। আর যখন দারুণ শীতে জীবলোকে থরহরি কম্প লাগে, তখন কোথায় থাক, বাপু?
    • বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, বসন্তের কোকিল, কমলাকান্ত - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, সপ্তম সংখ্যা, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৮৫ খ্রিস্টাব্দ (১২৯২ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ৮৪
  • প্রবল ধনের আশা মনে না আনিব,
    নৃপতির চেয়ে ধনী আমায় ভাবিব।
    সংসারের জাল হ’তে অন্তরে রহিব,
    অনায়াসে মহাসুখে কাল কাটাইব।
    • নারায়ণচন্দ্র বিদ্যারত্ন, ইচ্ছা, নীতিকণা - নারায়ণচন্দ্র বিদ্যারত্ন, প্রকাশক- কলিকাতা লাইব্রেরি, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৯৬ খ্রিস্টাব্দ (১৩০৩ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৫
  • যে লোক সংসারের ভিতরে জড়িয়ে রয়েছে সেই যে আসল সংসারী তা নয়; যে সংসার থেকে বেরিয়ে এসেছে সেই সংসারী, কারণ, সে তখন সংসারের থাকে না, সংসার তারই হয়। সেই সত্য করে বলতে পারে ‘আমার সংসার’।
    • রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ত্যাগ, শান্তিনিকেতন (১৯৩৪ প্রথম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, প্রকাশক- বিশ্বভারতী গ্রন্থন বিভাগ, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৯৬১ খ্রিস্টাব্দ (১৩৬৮ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৯
  • সংসার সমরাঙ্গনে যুদ্ধ কর দৃঢ় পণে
    ভয়ে ভীত হইও না মানব;
    কর যুদ্ধ বীর্য্যবান যায় যাবে যাক্‌ প্রাণ
    মহিমাই জগতে দুর্ল্লভ।
    • হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, জীবন সঙ্গীত কবিতা, কবিতাবলী- হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, দ্বিতীয় সংস্করণ, প্রকাশক- এডুকেশন গেজেট ও অবোধবন্ধু, প্রকাশস্থান- কলকাতা, প্রকাশসাল- ১৮৭১ খ্রিস্টাব্দ (১২৭৮ বঙ্গাব্দ), পৃষ্ঠা ১৫-১৬
  • এ সংসার মায়াজাল করিয়া বিস্তার
    সাধুর ঘটাতে চায় চিত্তের বিকার;
    সাধু কিন্তু নাহি ভোলে সংসার-মায়ায়,
    প্রকৃত পুণ্যের পথে সোজা চ’লে যায়।
    • রজনীকান্ত সেন, অটল, অমৃত - রজনীকান্ত সেন, প্রকাশক- অমিয়রঞ্জন মুখােপাধ্যায়, প্রকাশস্থান- কলিকাতা, প্রকাশসাল- ১৯০৯ খ্রিস্টাব্দ (১৩১৬ বঙ্গাব্দ),পৃষ্ঠা ৩৫

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]